বরিশাল নগরের পলাশপুর গ্রচ্ছগ্রামে এক ভিন্ন রকম বিয়ের আয়োজন করেছিলেন স্থানীয় লোকজন। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বরের সাথে শ্রবণ ও বাক-প্রতিবন্ধী কনের বিয়ে হয়েছে।

পাশাপাশি বাড়ি হলেও ঘোড়ার গাড়িতে কনেকে বরের বাড়ি পৌঁছে দিয়েছেন এলাকাবাসী। বর-কনের পোশাক-পরিচ্ছেদ এবং অতিথি আপ্যায়নের যাবতীয় খরচ মেটানো হয়েছে এলাকাবাসীর চাঁদার টাকায়।

আলোচিত বিয়ের বর হলো দৃষ্টি প্রতিবন্ধী কালাম বেপারী (২২) এবং কনে শ্রবণ ও বাক-প্রতিবন্ধী সুমা আক্তার (১৮)। সোমবার দুপুরে ছিল আলোচিত এই বিয়ের বর ও কনের গায়ে হলুদ।

জানা যায়, এলাকাবাসীর কাছ থেকে চাঁদা তুলে অতিথি আপ্যায়ন থেকে শুরু করে যাবতীয় আয়োজন সম্পন্ন করা হয়। বর-কনের বাড়ি পাশাপাশি হলেও ঘোড়ার গাড়িতে বর-কনেকে পুরো এলাকা ঘুরিয়ে বরের বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।

এসময় এলাকার উৎসুক লোকজন রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে বর ও কনেকে শুভেচ্ছা জানান।

বিয়ের উদ্যোক্তা সুমন সরদার জানান, বর-কনে এবং উভয় পরিবারের মতামত নিয়েই তাদের বিয়ে সম্পন্ন হয়। উভয় পরিবার আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল হওয়ায় এলাকাবাসীর কাছ থেকে চাঁদা তুলে বর ও কনের জন্য নতুন পোশাক, মিষ্টি এবং আপ্যায়নের খরচ মেটানো হয়। তাদের বিয়ে নিবন্ধন করে ঘোড়ার গাড়িতে কনের বাড়ি থেকে কনে ও বরকে বরের বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়।

পুরো এলাকার মানুষ তাদের বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা উপভোগ করেন এবং রাস্তার দুই পাশে দাঁড়িয়ে তাদের শুভেচ্ছা জানান।

স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর কেফায়েত হোসেনও ছিলেন এই বিয়ের উদ্যোক্তাদের একজন। তিনিও এই বিয়েতে সহায়তা করেন। এদিকে, বিয়ের পর কালাম কিছুটা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন সংসার চালানোর যোগান নিয়ে। তিনি সমাজের বিত্তবানদের সহায়তা কামনা করেছেন।

তবে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী সুমার চেহারায় শুধুই খুশির ঝিলিক।

 

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্ট নিউজ ২৪

By Desk