রংপুরে আগামীকাল রবিবার থেকে শুরু হচ্ছে করোনা ভ্যাকসিনের প্রয়োগ। প্রথম ধাপে করোনাযোদ্ধা চিকিৎসকদের মাঝে ভ্যাকসিন নেয়া নিয়ে আগ্রহ বেশি দেখা গেছে। এ পর্যন্ত ৫০০ জনের মত চিকিৎসক রেজিস্ট্রেশন করেছে বলে জানিয়েছেন সিভিল সার্জন।

রংপুরে করোনা ভ্যাকসিন

তিনি জানিয়েছেন রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের প্রায় সব চিকিৎসকই ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। তবে সাধারণ মানুষ এখনো রয়েছে দ্বিধাদ্বন্দ্বে। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি সচেতন মহল এমনটি সাংবাদিকরা করোনা ভ্যাকসিন নিবেন কি নিবেন না এ পর্যন্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি।

সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানা গেছে, গত ৩১ জানুয়ারি রবিবার সকালে রংপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ২ লাখ ৪০ হাজার ডোজ করোনা এসেছে। কোল্ড চেইন মেনটেইন করে ভ্যাকসিনগুলো ইপিআর স্টোরের আইএলআর ফ্রিজে সংরক্ষণ করা হয়েছে। রংপুরের সদর উপজেলা বাদে বাকি ৭টি উপজেলায় ভ্যাকসিন পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

সিটি কর্পোরেশন ও সদর উপজেলার মানুষ রমেক হাসপাতালের ৮টি বুথে এই ভ্যাকসিন গ্রহণ করবেন। এছাড়া প্রতি উপজেলায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে এই ভ্যাকসিন দেয়া হবে। এ পর্যন্ত কতজন ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছে সিভিল সার্জন এর সঠিক পরিসংখ্যান দিতে না পারলেও ৫ হাজারের বেশি মানুষ নিবন্ধন করেছে বলে তিনি জানান।

এদিকে মাঠ পর্যায়ে খোজ নিয়ে জানা গেছে, সাধারণ মানুষের মাঝে করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে খুব একটা আগ্রহ নেই। বেশ-কজন ব্যবসায়ীর সাথে কথা হলে তারা বলেন, বিষয়টি আগে পর্যবেক্ষণ করি তারপরে সিদ্ধান্ত নিব।

রংপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রফিক সরকার জানালেন, তার জানা মতে সাংবাদিকদের মধ্যে কেউ এখনো রেজিস্ট্রেশন করেননি। তিনি করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণে জনগণকে উদ্বুদ্ধ করার জন্য সাংবাদিকদের প্রতি আহবান জানান। সিভিল সার্জন ডা. হিরন্ব কুমার রায় বলেন, রমেক হাসপাতালেই প্রায় ৫০০ চিকিৎসক ভ্যাকসিন নেয়ার জন্য রেজিস্ট্রেশন করেছেন। রমেক হাসপাতালের ৮টি বুথ ও উপজেলার পর্যায়ে ৭ বুথের মাধ্যমে ভ্যাকসিন প্রদান শুরু হবে। তিনি ভ্যাকসিন গ্রহণে মানুষকে উদ্বুদ্ধ করার আহ্বান জানান।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪