নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় মধ্যরাতে এক তরুণীকে (১৮) ধর্ষণের চেষ্টায় হেলাল হোসেন (৪৮) নামে এক ইউপি সদস্যকে আটক করে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। পরে তরুণীর বাবার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। সোমবার (৩ মে) দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে উপজেলার চরএলাহী ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডে এ ঘটনা ঘটে। গ্রেফতার হেলাল হোসেন ৪নং ওয়ার্ডের বর্তমান ইউপি সদস্য ও একই এলাকার মৃত নূরুল হকের ছেলে।

তরুণীকে ধর্ষণচেষ্টা

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে হেলাল মেম্বার ওই তরুণীকে টেলিফোনে উত্ত্যক্ত করে আসছিলেন। সোমবার রাতে কথা আছে বলে তিনি ওই তরুণীর ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টাকালে স্থানীয়রা তাকে হাতেনাতে আটক করে। পরে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

ভুক্তভোগী তরুণী জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য হেলাল গত কয়েক মাস ধরে তার মোবাইলে নানা ধরনের কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তা বলে আসছিলেন। সোমবার রাতে তাকে ফোন করে কথা আছে বলে ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে মেম্বারকে হাতেনাতে আটক করে। এ সময় তিনি বিভিন্ন সময়ের বেশ কিছু কুরুচিপূর্ণ কথাবার্তার কল রেকর্ড এলাকাবাসীকে শোনান।

স্থানীয় চরএলাহী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রাজ্জাক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আটক ইউপি সদস্য হেলাল হোসেনকে পুলিশের হাতে সোপর্দ করা হয়েছে। কোম্পানীগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রিয়াদুল হাসান রাত ৩টার দিকে ইউপি সদস্য হেলালকে থানায় নিয়ে যান।

কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মীর জাহেদুল হক রনি জানান, হেলাল হোসেন নামে চরএলাহীর একজন ইউপি সদস্যকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ ঘটনায় তরুণীর বাবা বাদী হয়ে একটি মামলা করেছেন। গ্রেফতার হেলালকে আদালতের মাধ্যমে নোয়াখালী কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪