চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার নতিপোতা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও নতিপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোমিনুল হককে (৫৫) আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেছে স্থানীয়রা। শনিবার রাতে উপজেলার ভগিরতপুর গ্রামের একটি বাড়ি থেকে এক নারীসহ (৩৫) তাকে আটক করা হয়। এসময় তাকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে জনতা।

চুয়াডাঙ্গায় আপত্তিকর অবস্থায়

ভগিরতপুর গ্রামের ইলিয়াছ হোসেন জানান, তিনি এক সঙ্গীকে নিয়ে বাওড় পাহারা দিতে যাচ্ছিলেন। গ্রামের আলীহিমের বাড়ি থেকে এক নারীর চিৎকার শুনে সেখানে গেলে মোমিন মাস্টারকে বিবস্ত্র অবস্থায় দেখতে পান তিনি।

অভিযুক্ত নারী জানান, পারিবারি জমি সংক্রান্ত একটি বিরোধের বিষয়ে পরামর্শ দেয়ার কথা বলে তাকে ও তার স্বামীকে ভগিরতপুরে ডাকে মোমিন মাস্টার। পরে তার স্বামীকে বাইরে পাঠিয়ে নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করে মোমিন মাস্টার। এসময় তার চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে আসে।
অভিযুক্ত মোমিনুল হক জানান, তাকে পরিকল্পিতভাবে ফাঁসানো হয়েছে। তার রাজনৈতিক প্রতিপক্ষরা এর সাথে জড়িত।

দামুড়হুদা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, অভিযুক্ত মোমিনুল ইসলাম এবং ওই নারী উভয়েই থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দিয়েছেন। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪