দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত বোরো বীজতলা

কনকনে ঠান্ডা, ঘন কুয়াশা ও বিরুপ আবহাওয়ার কারণে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন সহ পৌরসভায় কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত হয়েছে ইরি বোরোর বীজতলা।

দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত বোরো বীজতলা
দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত বোরো বীজতলা


ঘোড়াঘাট (দিনাজপুর) সংবাদদাতা জিল্লুর রহমান: কনকনে ঠান্ডা, ঘন কুয়াশা ও বিরুপ আবহাওয়ার কারণে দিনাজপুরের ঘোড়াঘাট উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন সহ পৌরসভায় কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত হয়েছে ইরি বোরোর বীজতলা। প্রায় ১ মাস থেকে ঘন কুয়াশার কারণে সূর্যের আলো দেখা যায়নি। উপজেলায় ঘন ঘন কুয়াশা আর কনকনে শীতে বোরো চারা বিবর্ণ হয়ে হলুদ বর্ণ হয়ে গেছে। সেই সাথে বৃষ্টির ন্যায় শিশির পড়ায় আলু ও শরিষা ক্ষেতে দেখা দিয়েছে পঁচন রোগ ফলে কৃষকরা হতাশায় ভুগছে।

উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌর এলাকায় গত মৌসুমে আমনের আশানুরুপ ফলন না হওয়ায় কৃষকরা বোরো চাষের নির্ভরশীল হয়ে উঠে। বীজ তলায় রোরো তলা তৈরি করে। গত ১ মাসে অব্যাহত ঘন কুয়াশা এবং রাতে বৃষ্টির ন্যায় শিশির পড়ায় বোরোর বীজ তলার চারা বিবর্ণ হয়ে গেছে।

অনেব কৃষকের বীজ তলার চারায় পোকার প্রদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। কৃষকরা বীজ তলা রক্ষায় উপজেলা কৃষি অফিসের পরামর্শে সার ও বিভিন্ন কীটনাশক ব্যবহার করে আপ্রাণ চেষ্টা করছে। ঘোড়াঘাট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এখলাছ হোসেন জানান, এবার ঘোড়াঘাট উপজেলা ও পৌরসভায় ৬’শ একর জমিতে কৃষকরা বীজতলা তৈরি করেছে। চলতি শীত মৌসুমে কিছু বীজ তলার সামগ্রীক ক্ষতি গ্রস্ত হলেও তা সার ও কীটনাশক স্প্রে কর রিকভারী করা সম্ভব। 

তিনি প্রতি ইউনিয়নে উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের মাধ্যমে কৃষকদের কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত বীজতলা গুলোতে সার ও কীটনাশক স্প্রে করার জন্য প্রচারণা চালানোর নির্দেশ দিয়েছেন ও বাস্তবায়ন করছেন। 

এছাড়াও কুয়াশার হাত থেকে বীজতলা রক্ষার জন্য পলিথিন দিয়ে ঢেকে রাখার এবং বীজতলায় সেঁচ দিয়ে কুয়াশা বের করে দেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

ক্যাপশনঃ ঘোড়াঘাটে কোল্ড ইঞ্জুরিতে আক্রান্ত একটি ইরি-বোরো বীজতলা ।