দিনাজপুর গাওসুল আজম এতিমখানার সম্পত্তি লুন্ঠনকারীর বিচারের দাবীতে মানববন্ধন

শতকোটি টাকা মুল্যের সম্পত্তি লুন্ঠনকারী ভুমিদ:স্যু শাহরিয়ারের বিচারের দাবীতে সচেতন নাগরিক সমাজের ব্যানারে দিনাজপুরে ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচী পালন। ২০ সেপ্টেম্বর রবিবার সকালে শহরের পৌর এলাকার ৮নং ওয়ার্ডের শেখপুরা কবরস্থান সড়কে গাওসুল আজম এতিমখানার শতকোটি টাকা মুল্যের জমিদখলকারী গাওসে শাহরিয়ারের বিচারের দাবীতে স্থানীয়রা ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসুচী পালন করেছে।

মানববন্ধন চলাকালে গাওসুল আজম এতিমখানা কমিটির সা:সম্পাদক লিওন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১৯৯৪ সালে জানুয়ারী মাসে বালুবাড়ি মহল্লার মৃত: দলিল উদ্দীন আহমেদ এর পুত্র দানবির মৃত গোলাম মোস্তফা শেখপুরা মৌজার জেএল নং ৩,খতিয়ান নং ২২২/৫২ এবং ৬৬১ নং দাগের ৭ দশমিক ৫শতক এবং ৬৬০ নং দাগের ২৮ শতক(ডাঙ্গা)সহ মোট ৭ দশমিক ৩৩ শতক জায়গা গাওসুল আজম এতিমখানার নামে দানসত্ব দলিলমুলে রেজিষ্ট্্ির করে দেন।

এতিমখানার দানকৃত এ সম্পত্তি আত্বসাতের উদ্দেশ্যে ভুমিদ:স্যু শাহরিয়ার নানান কৌশল অবলম্বন এবং সন্ত্রাসী কার্য্যক্রম শুরু করেছে। ইতিমধ্যে সে প্রায় ২শ শতক জমি ইসলামী ব্যাংক,সোনালী ব্যাংকের ৮/৯জন কর্মকর্তার নিকট বিক্রি করে প্রায় ২০ কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।

তারা বলেন, গাওসুল আজম এতিমখানার জমি ক্রয়কারীদের মধ্যে রয়েছেন ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ দিনাজপুর শাখার আসাদুল,গোলাম কিবরিয়া,মোহাম্মদ আলী,আব্দুল জলিল,আমিনুল ইসলাম ও ওয়ামিক চৌধুরী। এছাড়াও সোনালী ব্যাকের তাহামিদুর রহমানও রয়েছেন। ক্রয়কারীরা ইতিমধ্যে ইল্লেখিত সম্পত্তির উপরে ৫/৬তলা বিশিষ্ট ভবন নির্মানের কাজও শুরু করেছেন।

বক্তারা বলেন,কবরস্থানেরমত পবিত্র জায়গার পাশে ভুমিদ:স্যু শাহরিয়ার বিশাল বামারত তৈরী করে সেখানে সুইমিং পুল,ডিজে র্পাক পার্টি সেন্টার ও নাইটক্লাব তৈরী করে চালিয়ে যাচ্ছেন মদের বার, নারী ব্যবসাসহ অসামাজিক কর্মকান্ড। সুইমিং পুলের নোংরা পানি ফেলছে পবিত্র কবরস্থানে। এ সংক্রান্ত স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে সম্প্রতি নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শাহরিয়ারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানাও করেন।

স্থানীয়রা এসমস্ত কাজের প্রতিবাদ করায় ক্ষিপ্ত হয়ে শাহরিয়ার বিভিন্ন সময়ে স্থানীয় নিরীহ মানুষদের মারধোরসহ ষড়যন্তমুলক মিথ্যা মামলায় ফাসিয়ে হয়রানী করেছে। এঘটনায় বিত্তশালী কোনো ব্যক্তি তার বিরুদ্ধে দাঁড়ালে শাহরিয়ার তাকেও কমমুল্যে সম্পত্তি কিংবা অর্থ দিয়ে হাতে করে নেয়। ৮নং ওর্য়াড কাউন্সিলর এ বিষয়ে প্যানেল মেয়রসহ অন্যান্য কাউন্সিলরদের নিয়ে পৌরসভায় একটি সালিশী বৈঠকও করেছে। ওই বৈঠক থেকে ভুমিদ:স্যু শাহরিয়ারকে তার স্বপক্ষে দলিল উপস্থাপনের জন্য বলা হলেও সে দীর্ঘদিন কালক্ষেপন করে দলিল প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হয়।

এরপরে দানকৃত এতিমের সম্পত্তিতে বিল্ডিং নির্মান কাজে স্থানীয় ওর্য়াড কাউন্সিলর ও এলাকাবাসী প্রতিবাদ করায় শাহরিয়ার কোতয়ালী থানায় কয়েকটি মিথ্যা মামলা দায়ের করে তদন্তে মিথ্যা প্রমানিত হয়। এতিমের সম্পত্তি আত্বসাতের ঘটনা ভিন্নখাতে প্রবাহের জন্যে শাহরিয়ার আবারো জেলা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্টেুট আমলী আদালত-১(সদর) এ মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন,গাওসুল আজম এতিমখানা কমিটির সভাপতি মো: আমির হোসেন, ৮নং ওর্য়াড কাউন্সিলর কাজী আকবর আলী অরেঞ্জ, এতিমখানা কমিটির সহ: সা: সম্পাদক রাহাত মাহামুদ,সৈয়দ মঞ্জুরুল ইসলাম ডাবলু।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *