দিনাজপুরে হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের স্মার্টফোন কেনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের মাধ্যমে সরকার কর্তৃক প্রদত্ত সফট লোনের চেক বিতরণ করা হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে ৯৮৪ জনকে চেক প্রদান করা হয়।

হাবিপ্রবিতে শিক্ষার্থীদের মাঝে সফট লোনের চেক বিতরণ

রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার আয়োজনে এই চেক বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন হাবিপ্রবি’র ট্রেজারার প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার।

এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন রেজিস্ট্রার প্রফেসর মো. ফজলুল হক, জনসংযোগ ও প্রকাশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. শ্রীপতি সিকদার, আইআরটির পরিচালক প্রফেসর ড. মো. তারিকুল ইসলাম, শরীরচর্চা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. শাহ মইনুর রহমান, সহকারী প্রক্টর ড. মো. রবিউল ইসলাম, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার সহকারী পরিচালক মো. আব্দুল মোমিন শেখ, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার উপ-পরিচালক মো. মাহাবুর রহমানসহ অন্যান্যরা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ।

প্রফেসর ড. বিধান চন্দ্র হালদার বলেন, করোনাকালীন অস্বচ্ছল শিক্ষার্থীদের কষ্টের কথা বিবেচনা করেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমি আশা করি মোবাইলের অভাবে তোমাদের যাদের অনলাইন ক্লাস করতে সমস্যা হতো, তাদের আর কষ্ট হবে না।

এদিকে, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা শাখার পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ তার বক্তব্যে বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে ২৫২৬ জনকে নির্বাচিত করেছিলাম, পরবর্তী সময়ে ইউজিসি’র সিদ্ধান্তের (বিশ্ববিদ্যালয়ের মোট শিক্ষার্থীর ১৫ শতাংশ) কারণে ১৬৭০ জনকে নির্বাচন করা হয়। সফট লোনের শর্ত উল্লেখ করে এই ১৬৭০ জনের কাছে আবার আবেদন আহ্বান করা হয়। প্রথম পর্যায়ে ৯৮৪ জন আবেদন করেছে, রবিবার তাদের চেক প্রদান করা হয়। বাকিরা (১৬৭০ জনের মধ্যে নাম থাকতে হবে) ১৫ তারিখ পর্যন্ত আবেদনের সুযোগ পাবেন।

তিনি বলেন, নীতিমালা অনুযায়ী শিক্ষার্থীদের প্রদানকৃত এই ঋণ সম্পূর্ণ সুদমুক্ত এবং স্মার্টফোন ক্রয়ের ভাউচারটি সংশ্লিষ্ট শিক্ষার্থীকে চেক গ্রহণের ১০ দিনের মাঝে সফট লোন অনুমোদন কমিটির সদস্য-সচিবের নিকট জমা দিতে হবে।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪