ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গায় বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও ৪নং টগরবন্ধ ইউনিয়ন আওয়ামী যুবলীগের সভাপতি হোসাইন শেখকে রাতের আঁধারে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ডান হাতের কবজি কর্তনসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে কুপিয়ে মারাত্মক জখম করার ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

আলফাডাঙ্গায় যুবলীগ নেতার কবজি কর্তন

সোমবার আহত হোসাইন শেখের ছোট ভাই আশিক শেখ ১৬ জনকে আসামি করে আলফাডাঙ্গা থানায় মামলাটি দায়ের করেন। মামলা নং- ০৪।

মামলায় আসামিরা হলো- আলফাডাঙ্গা উপজেলার বড়ভাগ গ্রামের আলা মিয়া (৬০), মো. শামীম শেখ (৩২), সুমন মিয়া (২২), মো. হান্নু শেখ (৪৮), মো. পান্নু শেখ (৪৫), মো. ইস্পাত ওরফে জুলফিকার শেখ (৪৫), ঠান্ডু শেখ (৪৫), সৈয়দ ওহিদ আলী (৪২), মো. নাজমুল শেখ (৩৫), মো. লিটন শেখ (৩০), সৈয়দ শওকত আলী(৪৭), মো. লিয়াকত শেখ (৪৮), মো. বখতিয়ার খান (৪০), মো. ইমরান খান (২৮), মো. শওকত শেখ (৪৫) ও রিজাউল শরীফ (৪৮)।

এ বিষয়ে মামলার বাদী আশিক শেখ জানান, ‘আমার ভাইয়ের ওপর যারা হামলা করেছে তাদের প্রত্যেককে আমার ভাই চিনতে পেরেছে। ভাইয়ের কথামতো ঘটনার সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে।’

আহত হোসাইন শেখের পিতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক ইউপি সদস্য কুদ্দুস শেখ কান্না জড়িত কন্ঠে জানান, ‘ওরা আমার ছেলেকে প্রাণে মেরে ফেলতে চেয়েছিল। আমার ছেলের ওপর যারা হামলা করেছে তাদের দ্রুত গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

এবিষয়ে আলফাডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. ওয়াহিদুজ্জামান জানান, ‘আসামিদের গ্রেফতারের জন্য জোর প্রচেষ্টা চলছে।’প্রসঙ্গত, পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হোসাইন শেখ গত বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১০টার সময় বড়ভাগ মোক্তার মোল্যার বাড়ির সামনে হামলার শিকার হন। আহত হোসাইন শেখ বর্তমানে রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪