সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত কাউন্সিলর তরিকুল ইসলাম খানকে হত্যার ঘটনায় দায়ের করা মামলায় একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রবিবার রাতে নিহত তরিকুল ইসলামের ছেলে হৃদয় খান বাদী হয়ে ৩২ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ৩০-৪০ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

সিরাজগঞ্জে নির্বাচিত পৌর কাউন্সিলর

মামলায় প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদত হোসেন বুদ্দিনকে প্রধান আসামি করা হয়েছে। পুলিশ রাতে অভিযান চালিয়ে মামলার এজাহার নামীয় ২৭ নম্বর আসামি বেপারী মহল্লার স্বপন বেপারীকে গ্রেফতার করেছে। বিষয়টি নিশ্চিত করে সিরাজগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দিন ফারুকী জানান, বাকি আসামিদের গ্রেফতারে পুলিশ মাঠে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।

প্রসঙ্গত, গত শনিবার ভোটগ্রহণ শেষে শহীদগঞ্জ সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্রে ফলাফল ঘোষণা দেরি হওয়ায় কাউন্সিলর তরিকুল ইসলাম খান কয়েকজন সমর্থক নিয়ে ভোট গণনার রুমে ঢুকতে যান। এসময় কেন্দ্রে দায়িত্বরত পুলিশ সদস্য তাকে রুমে ঢুকতে না দেয়ায় কেন্দ্রের ভেতরে তিনি অবস্থান নেন।

কিছুক্ষণ পর প্রিজাইডিং অফিসার ফলাফল ঘোষণা করেন। ফলাফলে তরিকুল ইসলাম খান ৮৫ ভোটে বিজয়ী হওয়ায় তার সমর্থকরা শ্লোগান দিতে থাকে। এসময় ওই কেন্দ্রে আগে থেকেই অবস্থান নেয়া প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী শাহাদত হোসেন বুদ্দিন ও তার সমর্থকরা তরিকুল ইসলামের ওপর হামলা চালায়। একপর্যায়ে তারা তরিকুলকে ছুরিকাঘাত করেন। গুরুতর অবস্থায় তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪