প্রতিমা বিসর্জনের মধ্য দিয়ে শেষ হচ্ছে শারদীয় দুর্গোৎসব। তাই, ভক্ত মন আজ বিষণ্ণ। এদিকে করোনার কারণে এবার ঢাকায় ছিল না সিঁদুর খেলার আয়োজন। তারপরও ভক্তরা একে অন্যকে সিঁদুর ছুঁয়ে নিয়ম রক্ষা করেন। শঙ্খধ্বনি, ঢাক-কাঁসোরের সুর আর পুরোহিত, ভক্তদের পূজা-অর্চনায় কেবলই দুর্গতিনাশিনী দেবী দুর্গার বিদায়ের আয়োজন। মর্ত্যলোক ছেড়ে বিদায় নেবেন দশভুজা দেবী। তাই, ভক্ত মন বিষণ্ণ, অশ্রুসিক্ত। বিজয়া দশমীর আচার শুরু হয় বিজয়া বিহিত পূজার মধ্য দিয়ে। আর ৫ দিনের দুর্গোৎসবের ইতি টানা হয় দর্পণ বিসর্জনের মাধ্যমে।

এরপর, দেবী দুর্গার পায়ে সিঁদুর ছুঁয়ে একে অন্যকে সিঁদুরের লাল আভায় রাঙিয়ে তোলেন। তবে প্রতি বছর নেচেগেয়ে সিঁদুর খেলায় যেভাবে মেতে উঠেন সবাই, করোনা মহামারির কারণে সেই উৎসবে যেন ভাটা পড়েছে। এবার দুর্গতিনাশিনীকে বিসর্জনের পালা। তবে সিঁদুর উৎসবের মতো করোনার কারণে জনসমাগম এড়াতে দেবী বিসর্জনের সময় শোভাযাত্রার আয়োজনও করা হয়নি।