বলতে গেলে অজানা মহাশূন্যে পৃথিবীবাসীর ঘর হিসেবে ব্যবহারিত হয় বিভিন্ন নভোযান কিংবা বাসযোগ্য কৃত্রিম উপগ্রহগুলো। নানা দেশের নানা মানুষ একসঙ্গে কাজ করেন এই স্টেশনগুলো থেকে। সে রকম একটি স্টেশনেই জীবনের ৬৬৬ দিন কাটিয়েছেন এক নারী, যার নাম পেগি হুইটসন।

৬৬৬ দিন পৃথিবীর বাইরে ছিলেন এই নারী

জানা গেছে, নভোচারী হিসেবে হুইটসন নির্বাচিত হন ১৯৯৬ সালে। টানা দুই বছর প্রশিক্ষণ ও মূল্যায়ন শেষে অ্যাস্ট্রোনট অফিস অপারেশনস পরিকল্পনা শাখায় কারিগরি দায়িত্ব দেয়া হয় তাকে। এরপর ১৯৯৮ থেকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত রাশিয়ায় ক্রু টেস্ট সহায়তা দলের নেতৃত্ব হিসেবে কাজ করেন তিনি।

২০০২ সালের ৫ জুন পাঁচ নভোচারীর সঙ্গে মহাকাশে পাড়ি জমান হুইটসন। প্রথম মিশনেই আইএসএস-এ তিনি ৬ মাস অবস্থান করেন। ১৮৪ দিন ২২ ঘণ্টা ১৪ মিনিট সেখানে অবস্থান শেষে সে বছরের ডিসেম্বরে ফিরে আসেন তিনি।

মহাকাশে পাড়ি জমানো নিয়ে অনেক রেকর্ড আছে এই নারীর। ২০০৭ সালে প্রথম নারী কমান্ডার হিসেবে মিশনের দায়িত্ব পান তিনি। সেই মিশনে ১৯১ দিন ১৯ ঘণ্টা ৪ মিনিট আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে অবস্থান করেন। তখন পর্যন্ত এটি ছিল পৃথিবীর বাইরে কোনো নারীর কাটানো সবচেয়ে বেশি সময়।

২০০২ সাল থেকে শুরু করে সব মিলিয়ে ৬৬৬ দিন তিনি পৃথিবীর বাইরে কাটিয়েছেন, যা কোনো নারীর জন্য সর্বোচ্চ। এর মধ্যে তিনি সবচেয়ে বেশি সময় কাটিয়েছেন ২০১৭ সালে। সেই বছর একটি অভিযাত্রা থেকে ২৮৯ দিন পর তিনি ফিরে আসেন ভূপৃষ্ঠে। তখনকার ৫৭ বছর বয়সী হুইটসনের জন্য সেটি ছিল সবচেয়ে বেশি বয়সি নারী হিসেবে মহাকাশ যাত্রা।

হুইটসন ২০০৯ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত নভোচারী কর্পসের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। তিনি প্রথম মহিলা, যিনি নভোচারী অফিসের নিরস্ত্র সামরিক বাহিনী ছিলেন। এই পদে দায়িত্ব নিয়ে তিনি মিশন প্রস্তুতি নিয়ে কাজ করেছেন। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক স্পেস স্টেশনের নভোচারীদের সবকিছুই দেখভাল করতেন।

আমাদের ফেইসবুক Link : ট্রাস্টনিউজ২৪