বাংলাদেশ রেলওয়ে সংকেত ও টেলিযোগাযোগ প্রকৌশল বিভাগের মাঠ পর্যায়ের ৫৭৭ তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীরা দিনে ২৪ ঘন্টা, সপ্তাহে ৭ দিন, বছরে ৩৬৫ দিন কোন প্রকার সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়াই ডিউটি করে চলছে। এর প্রতিবাদে রীট ৭৮৯৩/২০১০ দায়ের করলে ২০১৪ সালের ১০ মার্চ এরুপ কর্ম ব্যবস্থাকে অবৈধ অনৈতিক ও মানবাধিকার পরিপন্থী বলে আদালত রায় দেন।

রেলওয়ের ৫৭৭ কর্মচারীর কর্মবিরতির আল্টিমেটাম

এতে সংক্ষুদ্ধ হয়ে রেলওয়ের ডিজি আপিল ৭১৭/৫ দায়ের করলে তা খারিজ হয় ২০১৭ সালের ১০ ফেব্রুয়ারী। এভাবে রিভিউ ৮০/১৮ খারিজ হয়। এরপরে কন্টেন্ট ৯/২০১৮ দায়ের করে ভুক্তভোগীদের পক্ষে প্রভাস কুমার মল্লিক। চলতি বছরের ১ ডিসেম্বর এই মামলাতে রেলওয়ের মহাপরিচালক (ডিজি) মোঃ সামসুজোহা এফিডেভিট করে জানান, এ বছরের ১৫ অক্টোবর থেকে সংশ্লিষ্টদের কন্টিনিউয়াস ক্যাটাগরীর সকল সুযোগ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু কন্টেন্ট বাদী প্রভাস কুমার মল্লিক দাবী করেন যে তারা আজও দিনে ২৪ ঘন্টা সপ্তাহে ৭ দিন বছরে ৩৬৫ দিন পুর্বের মত ডিউটি করে চলেছে।

এমতাবস্থায় রেলওয়ের ডিজি কে আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সকল সুবিধা ভোগের সুযোগ দিতে আহ্বান করে। তা না হলে ২০২১ সালের ১ জানুয়ারী থেকে তারা কন্টিনিউয়াস ক্যাটাগরীর অন্যান্য কর্মচারীর মত সকাল ৯ থেকে ৫টা পর্যন্ত ডিউটি করে সপ্তাহে দুইদিন সাপ্তাহিক ছুটি পালনসহ অন্যান্য গেজেটেড ছুটি ভোগ করবে। এই মর্মে চলতি বছরের ৭ ডিসেম্বরে একটি আল্টিমেটাম পত্র রেলওয়ের ডিজি বরাবর জমা দিয়েছে।

আমাদের ফেইসবুক Link: ট্রাস্টনিউজ২৪