When Tea is Poisonous | Trustnews24

গ্রীষ্ম, শীত বা বর্ষা ৷ চায়ের প্রয়োজন গোটা বছরই ৷ চা ছাড়া যেন একদিনও চলা যায় না ৷ প্রচণ্ড কাজের চাপে হোক কিংবা অবসর সময়, চা-কফির কোনও বিকল্প নেই ৷

When Tea is Poisonous | Trustnews24
When Tea is Poisonous

গ্রীষ্ম, শীত বা বর্ষা ৷ চায়ের প্রয়োজন গোটা বছরই ৷ চা ছাড়া যেন একদিনও চলা যায় না ৷ প্রচণ্ড কাজের চাপে হোক কিংবা অবসর সময়, চা-কফির কোনও বিকল্প নেই ৷বাড়ির বাইরে রাস্তার ধারের দোকানে দাঁড়িয়ে চা-কফি খাওয়া মানেই বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই প্লাস্টিকের কাপে খাওয়া। কিন্তু অধিকাংশ সময় আমরা ভুলে যাই যে প্লাস্টিকের কাপে চা খাওয়া একেবারেই ঠিক নয় ৷ চা খেতে হলে প্লাস্টিকের কাপ ছেড়ে তাই চীনা মাটির কাপ বা কাঁচের কাপ ব্যবহার করা উচিত ৷কাঁচের কাপের দামের তুলনায় এর দাম অনেকটাই কম। তাই কাঁচের কাপের বিকল্প হয়ে উঠেছে প্লাস্টিকের কাপ।

দিনাজপুরের স্বনামধন্য রায়পুর অটো রাইস মিলের খাদ্যমান পরিক্ষক মোর্শেদুল আলমের মতামত…,
তিনি জানান যে …প্লাস্টিকের কাপে চা খাওয়া একেবারেই ঠিক নয়। তাঁদের মতে, প্লাস্টিকের তৈরি পানির বোতল ও শিশুদের দুধের বোতল, প্লাস্টিকের পাত্রে মাইক্ভঅভেনে গরম করা ও প্লাস্টিক মোড়কে বিক্রি হওয়া খাবার ডেকে আনছে নানা রোগ।

প্লাস্টিকের কাপ বানাতে সাধারণত যে যে উপাদান ব্যবহার করা হয়, সেগুলির মধ্যে …“বিসফেনল”… নামের টক্সিক এ ক্ষেত্রে বড় ঘাতক। গরম খাবার বা পানীয় প্লাস্টিকের সংস্পর্শে এলে প্লাস্টিকের শরীরে থাকা একাধিক কেমিক্যাল খাবারের সঙ্গে মেশে এবং তার খেলা দেখাতে শুরু করে।
আর তাই বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন যে, প্লাস্টিকের কাপে গরম পানীয় খাওয়া একেবারেই চলবে না।কারন… এগুলি বেশি মাত্রায় শরীরে প্রবেশ করলে মহিলাদের ইস্ট্রোজেন হরমোনের কাজের স্বাভাবিকতা বিঘ্নিত হয়, ক্লান্তি, হরমোনের ভারসাম্যতা হারানো, মস্তিষ্কের ক্ষমতা কমে যাওয়া-সহ একাধিক রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা ও থাকে।

বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন যে, চীনা মাটির কাপ বা কাঁচের কাপে চা খেলে শরীরের কোনও ক্ষতিই হয় না। পানীয়তে মিশতে থাকা এই সমস্ত রাসায়নিক শরীরের পক্ষে একেবারেই ভাল নয়। এর জন্য ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না। অন্যদিকে চীনা মাটির কাপ বা কাঁচের কাপে চা খেলে এমন কোনও আশঙ্কাই থাকে না।

আমরা সকলেই জানি যে,বোতল বা পাত্র তৈরিতে ব্যবহৃত পলিভিনাইল ক্লোরাইড বা পিভিসি…যেটিকে… নরম করা হয় থ্যালেট ব্যবহার করে। আর…এই থ্যালেট আমাদের শরীরের পক্ষে বিষ।

এবারে…আপনিই ভেবে দেখুন ” চা “ নামক যে পানিয় আমরা পান করছি তা আসলেই কি আমরা চা পান করছি নাকি বিষ পান করছি???

সুতরাং…এ বিষয়টিকে অত্যন্ত গুরুত্তের সাথে বিবেচনা করুন… আপনার প্রিয়জন ও আশেপাশের মানুষকে “প্লাস্টিকের কাপে চা খাওয়া”… থেকে বিরত রাখুন.